২০৩০ সালের মধ্যে স্মার্টফোন গায়েব!

২০৩০ সালের মধ্যে স্মার্টফোন গায়েব!

ইন্টারনেটে রমরমা যত বেড়েছে তত বেড়েছে মোবাইলের ব্যবহার। আজকাল একটা মিনিটও মোবাইল ফোন ছাড়া থাকতে পারে না। মুঠো ফোন যে মানুষের জীবনের একটা অপরিহার্য বস্তু হয়ে উঠে গিয়েছে তা বলাই বাহুল্য। কিন্তু, ভবিষ্যতে আধুনিক ফোনের সত্তা কি সম্পূর্ণভাবে সমাপ্ত হয়ে যাবে? 

কথাটা হয়তো অনেকের কাছেই অবিশ্বাস্য তার সাথে হাস্যকর লাগছে। অবশ্য লাগাটাই স্বাভাবিক। মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস এরূপ কিছু তথ্য পাবলিশ করেছেন যা মুঠো ফোন ফোনের ভবিষ্যতকে অনিশ্চিয়তার ভিতরে ফেলে দিয়েছে।

বিল গেটস বলেছেন, আগামী সময়ে ইলেকট্রনিক ট্যাটু আধুনিক ফোনের জায়গা নিতে পারে, যার কারণে আধুনিক ফোনগুলো বাজার থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। এই ইলেকট্রনিক ট্যাটুগুলো CHAOTIC MOON নামে ১টি কোম্পানি আরম্ভ করেছে, যা এক প্রকারের জৈব যন্ত্রের উপর ভিত্তি করে ট্যাটু তৈরি করে। এই ট্যাটুগুলির মাধ্যমে মানবদেহ সামঞ্জস্যপূর্ণ তথ্য কালেক্ট করা হয়, যার কারণে এগুলো বর্তমানে খেলাধুলা এবং সেবা লাইনে ব্যবহারকৃত হয়। সংস্থাটি এই ট্যাটুগুলি নিয়ে আরো নানান ধরনের পরীক্ষা নিরিক্ষা করছে যা ফিউচারে স্মার্ট ফোনের জায়গা নিতে পারে।

নোকিয়া কোম্পানির সিইও পেক্কা লুন্ডমার্কও আধুনিক ফোনের অলক্ষ্য হওয়ার বিষয়ে ১টি বড় বিবৃতি দিয়েছেন, যার মতে ৬জি টেকনোলজি ২০৩০ সাল নাগাদ আরম্ভ হবে তার সাথে সেই সময়ে আধুনিক ফোন তার সাধারণ ইন্টারফেসে থাকবে না। 

নোকিয়ার সিইও বলেন, ২০৩০ বর্ষের মধ্যে মোবাইল ফোনের জায়গায় আধুনিক চশমা বা অন্য কোনো ধরনের পণ্য প্রয়োগ করা হবে, যা সরাসরি আমাদের দেহের সাথে কানেক্টেড হবে।

Source: Daily Janakantha

২০৩০ সালের মধ্যে স্মার্টফোন গায়েব!

All Technology

আপনার মঙ্গল কামনায়

এই চাকরির জন্য প্রতিষ্ঠান আপনার কাছ থেকে কোন অর্থ চাইলে অথবা কোন ধরনের ভুল বা বিভ্রান্তিকর তথ্য দিলে আমরা দায়ী নয়। চাকরি পাওয়ার জন্য কোন ব্যাক্তি / প্রতিষ্ঠানকে অর্থ প্রদান করতে আমরা কাউকে উৎসাহিত করিনা। কোন প্রকার অর্থ লেনদেনের দায়িত্ব আমরা বহন করবো না।

Freshly
Spotlight